Type to search

Uncategorized

আমার ধর্মই আমাকে সবচেয়ে বেশি মানবিক হতে শিখিয়েছে।

Share

আমার ধর্মই আমাকে সবচেয়ে বেশি মানবিক হতে শিখিয়েছে। বিপদে আপদে এখনো আমি আমার স্রষ্টার সাহায্য চাই। একমাত্র স্রষ্টা’র বিশ্বাসে আমি অলৌকিক শক্তি পাই।

আমার স্রষ্টাই সবচেয়ে বড় বিজ্ঞানী। যিনি তাঁর প্রতিটি সৃষ্টিকে বৈজ্ঞানিক ভাবেই সৃষ্টি করেছেন এবং যথাস্থানে নির্ধারিত করে দিয়েছেন।

যারা স্রষ্টা’য় বিশ্বাস করেন না তাদের প্রতি আমার কোন অভিযোগ নেই। আমার অভিযোগ তাদের প্রতি যারা আমার বিশ্বাস নিয়ে অভিযোগ করেন।

যারা প্রকৃত বিজ্ঞানচর্চা করেন তাঁরা নিশ্চয়ই এক সৃষ্টিকর্তার উপস্থিতি টের পান। তা না হলে জগতের সমস্ত বিজ্ঞানী এবং ডাক্তারগণ অবিশ্বাসী হয়ে যেতেন। দুর্ভাগ্য আজ যারা গল্প লেখেন তারাই নাকি সবচেয়ে বড় বিজ্ঞানী! তারাই প্রশ্ন তুলেন স্রষ্টার সৃষ্টি নিয়ে।

কথা প্রসঙ্গে একটি ধর্মীয়গ্রন্থে (কাসাসুল আম্বিয়া) উল্লেখিত কিছু কথা সংক্ষিপ্ত আঁকারে লিখছি;

“সর্বপ্রথম মানব হযরত আদম (আঃ) কে আল্লাহ্‌র হুকুম পালনে ফেরেশতাগণ যখন হজ্জ পালন করতে বলেন এবং হযরত আদম (আঃ) কাবা’র স্থান তাওয়াফ করতে যান তখন ফেরেশতাগণ আদম (আঃ) কে জানান, তাঁর সৃষ্টির আগে থেকেই

তাঁরা (ফেরেশতাগণ) হাজার হাজার বছর ধরে কাবা’র স্থান তাওয়াফ করছেন।

(উল্লেখ্যঃ মানবজাতির মধ্যে হযরত আদম (আঃ) সর্বপ্রথম হজ্জ পালন করেন। কাবা ঘরে এক সময় মূর্তি স্থাপন করা হলেও এমন নয় যে প্রথমদিকে কাবা ঘর অন্য ধর্মাবলম্বীদের উপাসনালয় ছিল।)”

যাইহোক, এবার একটা বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা দেই। গত দুই/তিন বছরের মধ্যে এই ঘটনাটি ঘটেছে। সঠিক দিন তারিখ মনে নেই তবে নাসা বা অন্যান্য বিজ্ঞান গবেষণা কেন্দ্র তথ্যটি নিশ্চিত করেন।

বিষয়টি এমন,
সূর্য ‘কাবা শরিফের’ উপরে এমন অবস্থানে এসেছিলো যেখান থেকে কাবা শরীফের চারদিকে কোন ছায়া পড়েনি। মানে কাবা শরিফ এবং সূর্য একই রেখায় ছিল। পৃথিবীর অন্যকোন স্থানের উপর এমন ঘটনা ঘটার কোন প্রমাণ নেই। হাজার হাজার

বছর আগে সর্বশ্রেষ্ট বিজ্ঞানী (তিনি আল্লাহ্‌) কাবা শরিফের জন্য এমন জায়গা নির্ধারণ করেছেন যা পৃথিবীর ঠিক মধ্যবর্তী স্থান।

তিনি আল্লাহ্‌ তাঁর কোন কাঁটা কম্পাসের মাধ্যমে এমন জায়গা নির্ধারণ করেছেন তার উত্তর তিনি আল্লাহ’ই ভাল জানেন এবং কেন অার কিভাবে অন্য কোন স্থান বস্তু ছাড়া শুধুমাত্র কাবা শরীফ অার সুর্য একই রেখায় অাসলো সেই উত্তরও

নিশ্চয়ই তিনিই জানেন।

অবিশ্বাসীদের কাছে আবারো আবেদন, আপনার অবিশ্বাসে আমার কোন অভিযোগ নেই। আমার বিশ্বাস নিয়ে আপনি অভিযোগ করতে আসবেন না।

Previous Article
Next Article

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *